এন্ডয়েড এ Anyshare, Shareit, Zapya থেকে ৮ গুন দ্রুত ফাইল আদান প্রদান করুন। প্রায় 40 MBPS স্প্রিড

আগের দিনের ব্লুটুথের মাধ্যমে ফাইল ট্রান্সফারের দিন বেশ আগেই ইতি ঘটেছে। স্মার্টফোন আসার পর থেকে নানা রকম এ্যাপ ডেভেলপারদের মাঝে প্রতিযোগিতা লেগেই আছে । যে কোন ডেভেলপার কার আগে যেতে পারে ।

 

আগে Bluetooth এর গতি ছিলো 100Kbps সর্বোচ্চ । আর স্মার্টফোনের নানা রকম এ্যাপ এর মাঝে Any Share এর গতি রেকর্ড করা হয়েছে সর্বোচ্চ 5 Mbps, আবার Shareit এর সর্বোচ্চ গতি 4.7 Mbps, Japya এর সর্বোচ্চ গতি রেকর্ড করা হয়েছে 5.3 Mbps । এটা আমার ২ টি ফোনের দ্বারা গতি পরীক্ষা করা । এই রেকর্ড কোন অফিসিয়াল সাইট থেকে নেওয়া হয় নি । এগুলো আমার ২ টি ফোনে পরীক্ষা করা । তবে আরেকটি কথা ফোনের মান এবং মেমোরির ট্রান্সফার রেট অনুযায়ী ফাইল লেন দেনের গতি কিছুটা কম বেশি হতে পারে । আজকের টিউনে চলে আসি এখন ।

 

আজকে আপনাদের উপহার দিবো আরেক রকেট গতির ফাইল ট্রান্সফার করার এন্ড্রয়েড এ্যাপ । যা দ্বারা আমার ফোনে এর সর্বোচ্চ গতি রেকর্ড করা হয়েছে 19 Mbps এবং তাদের অফিসিয়াল Read Me ফাইলে দেওয়া আছে 40 Mbps .. যা ভাবতেই অবাক লাগে । আমি একটি 49 MB এর HD ভিডিও গান সেন্ড করে নেওয়ার সময় স্কিনশট নেবার আগেই ট্রান্সফার শেষ । আর এর ব্যবহারবিধি আরো মজার এবং অসাধারণ । এতদিন তুমি কোথায় ছিলে বস ????

 

এ্যাপটির নাম হচ্ছে SuperBeam Scanner . সাইজ মাত্র ১.৮ মেগাবাইট । ডাইরেক্ট ডাউনলোড লিংক দিয়ে দিচ্ছি নিচে । এর ব্যবহার বিধি আরো মজার এবং অন্যান্য এ্যাপ থেকে আলাদা । আমি ব্যবহারবিধি নিয়েই আগে বলছি ।

 

 

Sender : যিনি ফাইল সেন্ড করবেন এবং রিসিভ করবেন, তাদের দুজনের ফোনেই এ্যাপটি ইন্সটল দেওয়া থাকতে হবে । আপনি যে ফাইলটি পাঠাতে চান সেই ফাইলগুলো কিংবা ফোল্ডারগুলো সিলেক্ট করে নিন । এবার শেয়ার বাটনে চাপ দিন । এক্ষেত্রে আপনি File Manager, Gallery থেকেই সিলেক্ট করে শেয়ার বাটন চাপুন । শেয়ার করার জন্য অনেক মাধ্যম পাবেন । যেমন : Message, Bluetooth, Email ইত্যাদি । এখান থেকে আপনি SuperBeam সিলেক্ট করে দিন । নিচের স্কিনশট টি দেখুন ।

 



 

এবার সামান্য একটু Loading হবে । এরপর দেখা যাবে যে একটি QR কোড এসে হাজির । নিচের স্কিনশটের মতো ।

 



 

এ ক্ষেত্রে অটোমেটিক ভাবে আপনার Wi-fi চালু হয়ে যাবে । যদি আপানার ওয়াই ফাই চালু না হয় তবে তা ম্যানুয়ালী ভাবে চালু করে নিন । ফাইল সেন্ড কারীর কাজ শেষ । এবার রিসিভারের পালা ।

 

 

Receiver : এখন কাজ হচ্ছে যিনি ফাইলগুলো তার নিজের ফোনে নিবেন । আপনার ফোনের এ্যাপ গুলোর লিস্টে প্রবেশ করুন । এবার SuperBeam Scanner এ্যাপটি চালু করুন।

বি:দ্র: যদি আপনার ফোনের Wifi চালু না থাকে তবে চালু করে নিন ।

এ্যাপটি চালু হলে আপনার ফোনের ক্যামেরা দেখাবে । এবার যিনি ফাইল সেন্ড করেছেন তার ফোনে দেখানো QR কোডের উপর ক্যামেরাটি ধরুন ।

 



 

১ সেকেন্ডের মাধ্যেই কোডটি স্ক্যান হয়ে ফাইল আসা শুরু করবে আপনার ফোনে ।

 



 

আমার ফোনে এত গতিতে ফাইল এসেছে যে আমি স্কিনশট নেবার আগেই ট্রান্সফার শেষ ।

 

 

ডাউনলোড :  তবে ডাউনলোড করে নিন এই মজার এবং অসাধারণ ফাইল ট্রান্সফারের এ্যাপ । আপনাদের সুবিধার্থে আমি Play Store থেকে ডাউনলোড করে গুগল ড্রাইভে আপলোড করে দিয়েছি । সাইজ মাত্র 1.8 মেগাবাইট।

 ডাউনলোড  

গুগল প্লে স্টোরে এর দেওয়া বর্ণনা :

সরাসরি ওয়াইফাই ব্যবহার করে দ্রুত ডাটা স্থানান্তর করা যায় ।NFC বা QR কোড স্ক্যান ব্যবহার করে দুটি ডিভাইসের মাঝে সংযোগ স্থাপন । ওয়েব ইন্টারফেসের মাধ্যমে আপনার বন্ধুদের সাথে এই SuperBeam এ্যাপটি শেয়ার করতে পারবেন । যে কোনো ধরনের ফাইল শেয়ার করা যাবে । একক বা একাধিক ফাইল ( ফটো, ভিডিও, জিপ ফাইল, APKs, ফোনবুক) শেয়ার করা যাবে ।সব ডাটা স্থানান্তর হিস্টোরী রয়েছে ।আধুনিক ভাবে এই এ্যাপের ডিজাইন করা হয়েছে । ইউজার ইন্টারফেস খুবই সহজ ও ফ্রেন্ডলী ।হাল্কা, অন্ধকার এবং অ্যামোলেড রঙ থিম ।সব ফাইল "/sdcard / SuperBeam" ডিরেক্টরির অধীন সংরক্ষিত হয় । চাইলে পরিবর্তন করা যাবে. ডুপ্লিকেট ফাইল সম্পর্কে চিন্তা করার কিছুই নেই,  SuperBeam এ স্বয়ংক্রিয়ভাবে ফাইলের নামের অনুরূপ অন্যান্য নম্বর যোগ হবে ।SuperBeam ওয়াইফাই সরাসরি সমর্থন করে না এমন ডিভাইসের জন্য স্বয়ংক্রিয়ভাবে মোড হটস্পট পরিবর্তন করে । যেমন : ওয়াইফাই সমর্থীত না হলে ডিভাইসের মধ্যে বিদ্যমান অন্যান্য নেটওয়ার্কে সংযোগ করে নেয় । যেমন : Bluetooth.


টিউন করেছেন : আতিকুর রহমান সোহেল


কমেন্ট করার জন্য ধন্যবাদ। Conversion Conversion Emoticon Emoticon